সপ্তাহের সেরা

    আখ্যাত রচনা

    কবিতাবিবরণ

    বিবরণ

    অদূরে পাহাড়; রঙের বাহার খেলিছে তাহার ’পর;
    নীলাভ সবুজ; মলিন সুরুজ; কুয়াশা বাঁধিছে ঘর।
    পাহাড়ের সারি গুনিতে না-পারি; গিয়েছে মিলিয়ে নভে;
    পাহাড়ের ছায়ে পাহাড় দাঁড়ায়ে; সবারই নজর লভে।
    নিকট অচলে রমণী-আদলে রয়েছে দাঁড়িয়ে একা
    একখানি তরু, যার তনু সরু; নারীরূপে তরুরেখা!
    এসবে ছাড়িয়ে রয়েছে দাঁড়িয়ে খুলিয়া রমণী চুল;
    পাহাড়শিখরে দেখিছে নিজেরে; পাশে ফুটে আছে ফুল।
    ঢেউ-খেলা চুল করিছে ব্যাকুল পড়িয়া সোনালি আলো—
    এপাশে বাদামি রঙেরে প্রণামি; ওপাশে তিমির কালো।
    কবির চরণে চুলের বরণে রচা ‘বিদিশার নিশা’
    তারাধাঁর কেশে মেদুর আবেশে যেন পেয়ে গেছে দিশা!
    ক্ষণিকের তরে আঁখি বন্ধ্ করে হৃদয়ে পুরিতে সুখ,
    দূর দিকপানে পাহাড়ের শানে ফিরিয়া লইয়া মুখ
    তুলিলে দারুণ, যা দেখে অরুণ নিজেই জ্বলিবে খোদ,
    একখানি ছবি, যাহা দেখে কবি হারাবে আপন বোধ—
    যেরূপ ছবিতে নজরে চকিতে ভরিয়া যাইবে আঁখি;
    রহিবে ভুলিয়া নয়ন খুলিয়া তাবৎ ধরণি বাকি!

    চিত্রাধার: কার্শিয়ং, দার্জিলিং, ভারত।

    এবি ছিদ্দিক
    এবি ছিদ্দিক
    চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাষা ও ভাষাবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক সম্পন্ন করে একই বিষয়ে স্নাতকোত্তর (এমএ) পর্বে অধ্যয়নরত। বাংলা ভাষার বিবিধ বিষয় নিয়ে চর্চায় অনুরাগী। জন্ম কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলায়।

    মোহমত্ত জীবন

    মোহমত্ত জীবন আহা মোহের কী যে দশা! তুমি মত্ত হইলে তাহে হইবে জীবন সর্বনাশা। যেমন পতঙ্গ মরিছে জ্বলন্ত প্রদীপে পুড়িয়া, তাহার সৌন্দর্য দেখিয়া। হরিণ মরিছে কানে শুনিয়া ব্যাধের বংশীধ্বনিতে মজিয়া। কালো...

    হেরে যাইনি আমি

    হেরে তো যাইনি আমি হারিয়েও যাইনি পথে, অস্তিত্বে রয়ে গেছি স্বকীয়। পদচ্ছাপ ঠিক রয়েছে ঘরময় বিলীন হয়নি আজও। অনুভবের অনুবাদ তোলপাড় তব স্মৃতিতে ভ্রমণ অগণন সময়ের আলোড়ন...

    পরিবর্তন

    হৃদয় ছিল আমাজানের মত, সহস্রাধিক জাতের বৃক্ষ, লতা, গুল্মে ভরা, পশু, পাখি আর শ্বাপদের অভয়াচরণ। কামনার আগুনে জ্বলে গেছে সব, পড়ে আছে ছাই, কয়লা আর হাড়; হৃদয় এখন বিশাল...

    বহতা কষ্টনদী

    ২০২২সাল... এনেছিল কষ্টের বেনোজল ভাসায়ে নিয়েছে মোর মা'কে তারপর দিন-মাস করে করে, সময় ফুরালো পলে পলে। বেনামা শূণ্যতা বয়ে বয়ে... যা আজও অবিকল আছে । অনুভূতিরা রয়ে...

    তুমি ব্যঞ্জন

    একটা 'তুমি'র বিস্তৃতি যেনো আদিগন্ত ব্যাপী 'তুমি' শব্দটা তাই শত নামে স্বরূপি। কবির কলমও তুমিময়। গল্পে ও কাব্যগাথায় তেমনই প্রকাশ পায়। তবু বুঝতে পারি না একটা 'তুমি' সম্বোধন... ভরা কতোশত ব্যঞ্জন? আর...

    দুনিয়া-সার

    পথের ধারে বিশাল মাকাবুরা, সারি সারি কবর; চেনা-অচেনা কত মানুষ, কেউ তো রাখে না খবর বছরের পর বছর যায়, একাকী— ভাবে না মানুষ, আমার কতদিন বাকী! যারা মনে...

    কল্পিত সুখের মহড়া

    মানুষের কল্পিত সুখটাই বোধকরি বেশি সুন্দর তেল-নুন ছাড়াই ঘরকন্না এখানে... অনায়াসে রাত-দিন স্বপ্নসৌধ গড়ে, নির্বিঘ্নে, ইট-কাঠ-পাথরে সেজে সংসারী। ঘর-বারান্দায় নরম আলোকিত সুখের মহড়া মোমে-মখমলে-সন্ধ্যাদীপে জড়িয়ে...

    পরিবর্তন

    সরলতাকে ধিক্কার দিও না প্রকৃতির নির্মলতা, জলের স্বচ্ছতা সেখানে। কোনো চাতুরি ছিল না। খুব করে চাইলে, বলতেই পারতে ছুটে কি আসতে পারতাম না? নিঃস্ব ...

    সময়ের সুখ অসুখ

    সুখের এবং অসুখের দুদিন মাত্র সময় জীবনও তাই, আলোকোজ্জ্বল, মেঘময়। সময় যা করে তার তরে নিন্দা যে করে, তারে বল, সময় কি ছাড়ে মহাপুরুষেরে? তুমি কি দেখ নি,...

    মনোরম সাঁঝ

    জলে যে জীবন আছে তারাও কি জ্বলে প্রেমে পড়ে তাদেরও কি আছে নাকি সামাজিক বাধা, এক হতে তারাও কি ঘর ছাড়ে, বাধা আসে নানা ধর্ম...

    কিছু কথা থাকে

    জীবনে কিছু কথা থাকে লুকিয়ে রাখার জন্য কিছু কথা থাকে চিরকাল বয়ে বেড়ানোর জন্য কিছু কথা থাকে শুধু দুজনের চোখাচোখি হবার জন্য তেমনি কিছু...

    অসুখ

    এসব পুরনো রোগ। মাঝে মাঝে কচুরিপানা ভর্তি পাঁক হতেভুস করে ভেসে ওঠে আর ভুবন চিল ডানা মেলে আকাশে চক্রাকারে ভাসে। এসব পুরনো রোগএমনই হয়।জোনাকিরা ওড়ে...

    লেখক অমনিবাস

    ছিল প্রয়োজন

    না-জানি যতনে বোনা কত যে লালিতকথামালা তব পায়ে হয়েছে দলিত।তুমি মোর শেষ চিঠি যখন পুড়েছ;বই খুলে ফুল দুটি বাহির করেছ,তখন পড়েছে জানি তার কথা...

    মান-অভিমান

    মুদিত নয়নে দেখে সেদিন নদীর ধারে মনে ক্ষীণ দ্বিধা রেখে অবশেষে শুধি তারে— “যে চোখে স্বপন খুঁজে পায় পথিকের মন, আছ কেন তাহা বুজে, করেছ কি কোনো...

    এই বিভাগে